ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি কি কিভাবে কাজ করে


ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক

ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি কি কিভাবে কাজ করে

 

এখন আমরা বিস্তারিত জানব ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি কি কিভাবে কাজ করে। পাশাপাশি কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক থেকে কিভাবে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলকে রক্ষা করতে পারেরি। আপনি যদি একজন ইউটিউবার হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনার ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকা প্রয়োজন। কারণ একটা অথবা দুইটা কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক এর কারণে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি কিন্তু ইউটিউবের টিম ডিলিট করে দিবে। বিষয়টি আসলে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সকল ইউটিউবারের কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি বিষয়টি সম্পর্কে অনেক ভালো ধারণা থাকা প্রয়োজন। আশা করি আজকে আপনি নতুন কিছু জানতে ও শিখতে পারবেন তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

 

কমবেশি ছোট-বড় সব ধরনের ইউটিউবার কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক কে খুব ভয় পায়। কারণ একটা ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক এর কারণে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি ডিলিট হয়ে যেতে পারে। আপনি যদি মোটামুটি ভালো খারাপের মধ্যে পার্থক্য বের করতে পারেন তাহলে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক নিয়ে আপনাকে তেমন একটা আর চিন্তা করতে হবে না। প্রথমে আমাদের জানতে হবে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন কি কিভাবে কাজ করে, তারপরে আমরা জানবো আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটিকে কিভাবে আমরা কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক থেকে রক্ষা করতে পারি।

 

আপনি যদি সবার আগে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে এখনি দেরি না করে নিচে থাকা ইউটিউব ভিডিওটি মনোযোগ দিয়ে সম্পূর্ণ দেখুন। অবশ্যই নিচে থাকা ইউটিউব ভিডিওটি দেখার মাধ্যমে ইউটিউব সম্পর্কে নতুন নতুন অনেক কিছু জানতে ও শিখতে পারবেন। আগে থেকে একটা কথা বলে রাখি ভিডিওটি কিন্তু অনেক বড় সম্পূর্ণ ভিডিও না দেখলে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি সম্পর্কে সব কিছু জানতে পারবেন নাতাহলে আর কি এখনি দেরি না করে নিচে থাকা ভিডিওটি মনোযোগ দিয়ে সম্পূর্ণ দেখুন।

 

 

আশাকরি এখন উপরে থাকা ইউটিউব ভিডিওটি দেখার মাধ্যমে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনেছেন। এখনই যদি কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি সম্পর্কে আপনার মনে কোন প্রশ্ন থাকে অবশ্যই নিচে থাকা ফেসবুক কমেন্ট এর মাধ্যমে আমাদেরকে প্রশ্ন করতে পারেন। পাশাপাশি ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি সম্পর্কে আপনার মনে যত প্রশ্ন আছে সকল প্রশ্নের উত্তর আমি অলরেডি নিচে দিয়েছি আপনি চাইলে চেক করতে পারেন। বাকি বিস্তারিত আলোচনা নিচে দেওয়া আছে ধন্যবাদ।

 

ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি

 

ইউটিউব তাদের কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্য বেশ কিছু নিয়ম কানুন নির্ধারণ করে রেখেছে। আর এই নিয়মকানুনগুলো কে বলা হয় ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি। অবশ্যই ছোট বড় সকল ইউটিউবারের ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি মেনে চলতে হবে। আপনি যদি কমিউনিটি গাইডলাইন না মেনে চলে তাহলে বেশি দিন আর ইউটিউবে থাকতে পারবে না, কারণ কমিউনিটি গাইডলাইন না মানার কারণে আপনার শখের ইউটিউব চ্যানেল ডিলিট করে দেওয়া হবে।

 

আপনি যদি ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসি নিয়মকানুনগুলো অমান্য করে তাহলে কিন্তু ইউটিউব টিম নিজে থেকেই আপনার চ্যানেলকে সাসপেন্ড করে দিবে অথবা সারা জীবনের জন্য ডিলিট করে দিলাম। আপনার ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে কিন্তু আর কখনো ফিরে পাবেন না।

 

অবশ্যই এখন অনেকের মাথায় একটা প্রশ্ন আসতে পারে যে ইউটিউব এর কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসিতে এমন কি জিনিস আছে। যার কারণে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি ডিলিট হয়ে যেতে পারে। তাহলে চলুন ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন পলিসিতে কি কি বলা আছে ও আমরা কিভাবে মেনে চলতে পারি বিস্তারিত জেনে নেওয়া।

 


প্রতারণামূলক কাজকর্ম ও ভিডিও স্ক্যাম

 

এখন আমরা কথা বলবো Spam & deceptive practices (স্প্যাম ও প্রতারণামূলক কাজকর্ম বা অনুশীলন পলিসির আন্ডারে, (Spam, deceptive practices, & scams policies) স্প্যাম, প্রতারণামূলক কাজকর্ম ও স্ক্যাম সংক্রান্ত নীতি বা পলিসি। বিস্তারিত জানার জন্য অবশ্যই আমাদের সাথে থাকুন।

 

ভিডিও টাইটেল দেস্ক্রিপশন ও থাম্বেলভিতরে যেই বিষয়গুলো দেখানোর কথা ছিল ওই বিষয়টি যদি আপনার ভিডিওতে না থাকে তাহলে এটাকে বলা হয় ভিডিও স্প্যাম। যেমন আপনার ইউটিউব ভিডিওতে টাইটেলে একটা বিষয় বললেন কিন্তু ভিডিও ভিতরে আরেকটা বিষয় দেখানো হয়েছে অথবা থাম্মেল ভিতরে যেই বিষয়টি দেখানো হয়েছে ওই বিষয়টি ভিডিওর ভিতর নেই। এটাকেই মূলত বলা হয় ভিডিও স্প্যাম। আশা করি বিষয়টি কিছুটা হলেও ভালোভাবে বুঝেছেন যদি না বুঝে থাকেন তাহলে আমাদেরকে জানাবেন।

 

একটা ভিডিও বারবার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে অথবা অন্যান্য ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা যাবে না. একটা ভিডিও শুধু একটাই ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা যাবে একবার। বিষয়টি মাথায় রাখবেন আশা করি। একটা ইউটিউব ভিডিও আপনি যদি একাধিক বার নিজের চ্যানেলে অথবা অন্যান্য ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করেন তাহলে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক দিবেন।

 

ইউটিউব ভিডিওর মাধ্যমে এমন কোন সফটওয়্যার শেয়ার করা যাবে না যেই সফটওয়ারের সাহায্যে কোন মানুষ অথবা কোন কোম্পানির কোন প্রকার ক্ষতি হতে পারে। এমন কোন ওয়েবসাইট অথবা অ্যাপস অথবা সফটওয়্যার নিয়ে ভিডিও বানানো যাবেনা যেই সফটওয়্যার অথবা অ্যাপস অথবা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রাইভেসি নষ্ট হয় অথবা ইউজার প্রতারণার শিকার হতে পারেন অথবা হবে। এই কাজটি আসলেই কখনোই করা যাবে না বিষয়টি আসলেই প্রত্যেকটা ইউটিউবারের জানা প্রয়োজন।

 

কখনোই কোনো প্রকার auto-generated কন্টেন ইউটিউবে আপলোড করা যাবেনা। যদি আপলোড করেন তাহলে কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক দিবে ইউটিউব। যেই ভিডিওগুলো তে রবোটিক ভয়েস ব্যবহার করা হয় অথবা যেই ভিডিওগুলো তে ইমেজ স্লাইড শো ব্যবহার করা হয় ওই ভিডিওগুলো কে মূলত অটো জেনারেটর কন্ট্রোল বলা হয়। আশা করি বিষয়টি কিছুটা হলেও বুঝেছেন যদি কোন কারণে এখনও না বুঝে থাকেন তাহলে অবশ্যই নিচে থাকা ফেসবুক কমেন্ট এর মাধ্যমে আমাদেরকে জানাবেন।

 

ইউটিউব ভিডিওতে আপনি কোন প্রকার ভুল তথ্য শেয়ার করতে পারবেন না। কোন অ্যাপস অথবা ওয়েবসাইটে ভিজিট করলে আপনি এত টাকা পাবেন কিন্তু পেল না এধরনের ভুলভাল ভিডিও বানানো যাবেনা। সব সময় আপনি আপনার ইউটিউব ভিডিওতে সঠিক তথ্য শেয়ার করবেন ভুল তথ্য শেয়ার করবেন না।

 

আপনার ইউটিউব ভিডিও টাইটেল ও থাম্মেল একটা বিষয় দেখানো হচ্ছে কিন্তু আপনার ভিডিওতে আরেকটা বিষয় দেখানো হচ্ছে এই ধরনের কাজ করা যাবে না। কখনোই ভুল মেটাডাটা শেয়ার করা যাবে না বিষয়টা সবসময় মাথায় রাখবেন। ভিডিও থাম্মেলে কখনোই কোন প্রকারের ভিডিওতে নেই এমন কোন ছবি অথবা টেক্সট ব্যবহার করা যাবে না। বিষয়টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ সকল ইউটিউবারের এই বিষয়টা মাথায় রাখা প্রয়োজন।

 

আপনার ইউটিউব ভিডিওতে এমন কোন কিছু দেখানো যাবে না যেমন রাতারাতি বড়লোক হতে পারে অথবা একটা কাজ করলেই কোটিপতি হয়ে যাবে। এই ধরনের বিষয়গুলো উপরে আপনি কখনো ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করতে পারবেন না। যদি আপলোড করেন সেক্ষেত্রে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক আপনাকে দিবে বিষয়টা যেন মাথায় থাকে। অথবা কোন কোম্পানি অথবা কোন প্রতিষ্ঠান অথবা রাজনৈতিক দলকে ছোট করে কোনো ভিডিও বানানো যাবেনা।

 

কখনোই সাবস্ক্রাইবার অথবা ইউটিউব ভিউ বেচাকেনা করা যাবেনা। সাবস্ক্রাইবার ও ভিউ কেনার জন্য বলতে পারবেন না পাশাপাশি SUB4SUB করতে বলতে পারবেন না। ইউটিউব ভিডিও অথবা ইউটিউব ভিডিও কমেন্টের মাধ্যমে কাউকে এই বিষয়গুলো বলতে পারবেন না।

 

ইউটিউব ভিডিওর কমেন্ট বক্সে কোন লোভনীয় অফার শেয়ার করা যাবে না অথবা অন্য কোন মানুষের কোন প্রকার ক্ষতি হতে পারে এমন কোনো তথ্য শেয়ার করা যাবে না। পাশাপাশি ইউটিউব কমেন্ট বক্সে মাধ্যমে কোন প্রকার প্রতারণা কোনভাবেই করা যাবে না। ওয়েব সিরিজ দেখার কোন লিংক অথবা কোন পরামর্শ দিতে পারবেন। একই কমেন্ট একাধিকবার ব্যবহার করতে পারবেন না।

 

কোন টিভি অথবা ওয়েব সিরিজ সরাসরি লাইভ স্ট্রিম করতে পারবেন না। অথবা কিছুটা এডিটিং করে আপনি পুনরায় লাইভ স্ট্রিম করতে পারবেন না। যেই কোন ধরনের সফটওয়্যার ব্যবহার করে কোন প্রকার টিভি শো অথবা সরাসরি সম্প্রচার হচ্ছে এমন কোন খেলাধুলা ইউটিউব চ্যানেলে লাইভ স্ট্রিম করতে পারবেন না অথবা ভিডিও আকারে ছাড়তে পারবেন না।


 


আপনি যদি সবার আগে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে এখনি দেরি না করে নিচে থাকা Sohag360 ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিওটি মনোযোগ দিয়ে সম্পূর্ণ দেখতে পারেন। আশা করি ভিডিওটি আপনাদের মাঝে অনেক বেশী ভালো লাগবে কারণ ভিডিওটি আসলে অনেক অনেক বেশি ভালো হয়েছে। অবশ্যই নিচে থাকা ফেসবুক কমেন্ট এর মাধ্যমে আপনি আপনার মতামত আমাদের মাঝে শেয়ার করবেন। এখনি দেরি না করে তাহলে নিচে থাকা ভিডিওটি মনোযোগ দিয়ে সম্পূর্ণ দেখুন।

 

 

 

তাহলে আমরা সর্বপ্রথম জানার চেষ্টা করি কমিউনিটি কি ও ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক কি ও কেন দেওয়া হয়। কমিউনিটি মানে হচ্ছে যেখানে অনেকগুলো মানুষ থাকে একজনের কাজ দ্বারা আরেকজনের প্রভাবহয় পরে সেটাই হচ্ছে কমিউনিটি। ঠিক তেমনই ইউটিউব একটি কমিউনিটি। কারণ কিছু মানুষ ইউটিউব এ শুধু ভিডিও দেখার জন্য আসে আবার. কিছু মানুষ ইউটিউবে টাকা ইনকাম করার জন্য আসে. আবার কিছু কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্য প্রচার এর জন্য ইউটিউব কে ব্যবহার করেন। ইউটিউব কমিউনিটিতে থাকতে গেলে আমাদের কিছু নিয়ম কারণ সবসময় মেনে চলতে হবে। আমরা যদি ইউটিউব কমিউনিটির নিয়মগুলো অমান্য করে তাহলে কিন্তু আমাদেরকে ছোট অথবা বড় শাস্তি দেওয়া হয়। তাহলে চলুন বেশি কথা না বলে দেখে নেওয়া যাক কি কি কারণে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক দেওয়া হয়।

 

কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক তালিকা

 

প্রথম :- কোনভাবে কোন সেক্সচুয়াল কনটেন্ট আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা যাবেনা। যদি ভুলবশত কোন প্রকার সেক্সচুয়াল কনটেন্ট আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করে ফেলেন সেইক্ষেত্রে আপনাকে একটা ইউটিউব এর পক্ষ থেকে কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক দেওয়া হবে। কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক এর কারণে ইউটিউব আপনার চ্যানেলটাকে সারা জীবনের জন্য ডিলিট করে দিতে পারে। বিষয়টা মাথায় রাখবেন পাশাপাশি কখনো কোন প্রকার সেক্সচুয়াল কন্তেন্ট আপলোড করার কথা ভুলেও চিন্তা করবেন না।

 

দ্বিতীয় :- এমন কোন ভিডিও আপলোড করবেন না যাতে আপনার ইউটিউব ভিডিও দেখে কোন মানুষ কোন খারাপ কাজ করে। আপনার ইউটিউব ভিডিওর ভিতরে মানুষকে ক্ষতি করা যাবে এমন কোনো অস্ত্র দেখানো যাবে না। বিষয়টা আমি আপনাকে ভালোভাবে বুঝাতে পারছিনা আপনি বিস্তারিত জানার জন্য উপরের ভিডিওটা মনোযোগ দিয়ে সম্পূর্ণ দেখুন তাহলে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

 

তৃতীয় :- মারামারি অথবা কাটাকাটি এই ধরনের কোন ভিডিও দেওয়া যাবে না। এই ধরনের ভিডিও দেখিয়ে কিছু মানুষ হয়তো খুন-খারাবি করতে পারে এই কারণে এই ধরনের ভিডিও কোনভাবে যাওয়া যাবেনা। আপনার যদি নিউজ চেলেন হয় তাহলে কি ছুড়ে দেখাতে পারেন বাট কমপ্লিটলি দেখানো যাবে না। কিছুদিন আগে বাংলাদেশ কোরবানি ঈদের গরু জবাই করা ভিডিও গুলো অনেক ইউটিউবার আপলোড করেছিল এই কারণে বেশিরভাগ ইউটিউবার কে ইউটিউব এর পক্ষ থেকে কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক দেওয়া হয়েছিল। বিষয়টা ভালোভাবে মাথা রাখবেন আর এই ধরনের ভিডিও কখনই আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করবেন না।

 

চতুর্থ :- কপিরাইট সম্পর্কে কমবেশি আমরা সবাই জানি। অন্যের জিনিস কপি করে নিজের ইউটিউব ভিডিওতে ব্যবহার করলে কপিরাইট দেওয়া হয়। কিন্তু ইউটিউবে টিম চাইলে কপিরাইট এর পরিবর্তে আপনাকে ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক দিতে পারে। আশা করি বিষয়টা মাথায় রাখবেন। ইউটিউব কপিরাইট কি কপিরাইট কিভাবে দেওয়া হয় বিস্তারিত জানার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে আর্টিকেল পড়তে পারেন।

 

পঞ্চম :- কোন ধর্ম জাতিগোষ্ঠীর দেশ কোম্পানিকে ছোট করে ভিডিও বানানো যাবেনা। এমন কোনো ভিডিও বানানো যাবেনা যে ভিডিওর মাধ্যমে কোন মানুষের মনে আঘাত লাগে। বেশিরভাগ সময় দেখা যায় নির্দিষ্ট কোন ধর্ম অথবা জাতিকে নিয়ে অনেক খারাপ খারাপ ভিডিও অনেক ইউটিউবার ভিডিও বানায় এই ধরনের ভিডিও বানানো যাবেনা।

 

ষষ্ঠ :- ইউটিউব ভিডিওর মাধ্যমে কখনোই কাউকে হুমকি দেওয়া যাবে না। কখনো কোন ধর্ম জাতিগোষ্ঠী অথবা মানুষকে ধমকি দেওয়া যাবেনা ভিডিও মাধ্যমে। এ বিষয়গুলো অনেক বেশী সেনসিটিভ এ বিষয়ে গুলো মাথায় রাখবেন।

 

সপ্তম :- ইউটিউব ভিডিওর মেটাডাটা ও ভিডিওকন সবসময় ফ্রেন্ড থাকতে হবে। যেমন আপনি ভিডিও বানাইছেন একটা বিষয় কিন্তু কিন্তু আপনার ইউটিউব ভিডিও থাম্বেল বলছে অন্য কথা এই ধরনের কাজ করা যাবে না। ভিডিও টাইটেল দেস্ক্রিপশন ও থাম্মেল ভিতরে যা থাকবে তাই কিন্তু আপনার ভিডিওর ভিতর থাকতে হবে। সব সময় সঠিক মেটাডাটা ইউটিউব ভিডিওতে ব্যবহার করতে হবে এটা সম্পূর্ণ বাধ্যতামূলক।

 

একটা বিষয় ভালোভাবে মাথায় রাখবেন ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক শুধু ইউটিউবের টিম দিতে পারবে অন্য কোন ইউটিউব চ্যানেল আপনাকে দিতে পারবে না। এখনো যদি কোন প্রকার প্রশ্ন থাকে অথবা জানার কোন আগ্রহ থাকে অবশ্যই নিচে থাকা ফেসবুক কমেন্ট এর মাধ্যমে আপনি আপনার সমস্যার কথা আমাদের কে জানাবেন।

আরো জানুন :- ইউটিউব কপিরাইট স্ট্রাইক

ভুল ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক :- ইউটিউবের টিম যদি ভুলবশত কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক আপনার ইউটিউব চ্যানেলের দেয় তাহলে আপনি প্রথমত ভয় পাবেন না ভুলবশত দিলে কোন চিন্তা করার মতো কিছু নেই। প্রথমত আপনাকে ভালোভাবে কনফার্ম হবে যে আপনি ইউটিউবের কোন নিয়ম অমান্য করেন নি। তারপরে ইউটিউবকে আবেদন করতে হবে যে আপনি ইউটিউব এর কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক বিরুদ্ধে একটি রিপোর্ট করেছেন। ইউটিউবের টিম ভালোভাবে বিষয়টি যাচাই করবে যদি মনে হয় সবকিছু ঠিক আছে তাহলে কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক উঠিয়ে নেবে।

 

প্রত্যেকটা ছোট-বড় ইউটিউবারের ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক সম্পর্কে অনেক ভাল ধারণা থাকা প্রয়োজন। একটা কপিরাইট স্ট্রাইক এর কারণে আপনার সর্কের ইউটিউব চ্যানেলটি ডিলিট হয়ে যেতে পারে। বিষয়টি ছোট-বড় সব ধরনের ইউটিউব ভালোভাবে মাথা রাখা প্রয়োজন।

 

আশাকরি ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক সম্পর্কে মোটামুটি একটা ভাল ধারণা পেয়েছেন। এখনও যদি কোন কারণে আপনার মনে কোন প্রকার প্রশ্ন থাকে অবশ্যই নিচে থাকা ফেসবুক কমেন্টে মাধ্যমে প্রশ্ন করতে পারেন। BD Youtube Community টিম আপনাকে সবসময় সব ধরনের ইউটিউব বিষয়ে সহযোগিতা ও সাহায্য করবো। আপনার মূল্যবান সময় আমাদের ওয়েবসাইটে দেওয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

© 2019-2022 BDyoutubecommunity.com